চোর সাজিয়ে ২ তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে চট্টগ্রামে গ্রেফতার ৬

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

চাকুরী খুঁজতে গিয়ে গণ ধর্ষণের শিকার হয়েছে দুই কিশোরী। নগরীর কোতোয়ালী থানার স্টেশন রোড় এলাকার একটি মার্কেটের ছাদে নিয়ে তাদের উপর্যোপুরি গণধর্ষণ করেছে ৮ নরপশু। গতকাল রবিবার রাতে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ওই দুই তরুণীকে মোবাইল চোর সাজিয়ে সালিসের নামে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পু্লিশ।

এ ঘটনায় এক কিশোরীর মা বাদী হয়ে কোতোয়ালী থানায় মামলা করার পর,  সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সিটিজি ভয়েসকে জানান কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন।

গ্রেফতারকৃত ছয়জন হলেন- আবদুল আউয়াল ডালিম (৩০), মো. ফারুক (২৭), মো. কবির (২৭), জাহাঙ্গীর আলম (২৪), মো. বাবলু (২৮) ও মো. সেলিম (৩৫)।

জলসা মার্কেটের ৫ম তলায় একটি বোরকার দোকানে চাকুরী দেয়ার কথা বলে ১৬ ও ১৭ বছর বয়সী দুই কিশোরীকে মার্কেটে নিয়ে যায় দোকান মালিক রাশেদ।  সন্ধ্যায় চাকুরীর বিষয়ে কথা বলে বাসায় চলে যাওয়ার সময় দোকানের দুই কর্মচারী মোবাইল ফোন চুরির জন্য তাদের সন্দেহ করে।পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের নামে আটকে রাখে।  রাতে শালিশের কথা বলে দুই বান্ধবীকে মার্কেটের নবম তলার ছাদে নিয়ে যায়।

কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন সিটিজি ভয়েসকে জানান, চাকুরি খুঁজতে জলসা মার্কেটে গিয়েছিল মেয়ে দুটি। কিন্তু সেখানে তাদের দেওয়া হয় চুরির অপবাদ। পরে জিজ্ঞাসাবাদের নামে তাদের নেওয়া হয় জলসা মার্কেটের ছাদে। সেখানে তাদের পালাক্রমে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে আট নরপশু।

ভিকটিমদের স্বজনরা দীর্ঘ সময় খোঁজাখুঁজির পর তাদের গুরুতর আহতাবস্থায় পুলিশের সহায়তায় চমেক হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করায়।

ঘটনার সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথেই ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। পলাতক বাকি দুইজনকে গ্রেফতারেও অভিযান চলছে। প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা এবং অভিযুক্তদের সম্পৃক্ততার প্রমাণ মিলেছে। যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

মতামত