সৌদিয়া বাসের জিন্মিদশা থেকে এবারও মুক্তি পেলনা লোহাগাড়াবাসী

আবদুল আউয়াল জনি, সিটিজি ভয়েস টিভি:

চট্টগ্রাম জেলা শহর থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান ২৫৮.৮৭ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের লোহাগাড়া উপজেলার। উপজেলার লোকসংখ্যা প্রায় ৭ লক্ষ।

উপজেলার অধিকাংশ জনগোষ্ঠি ব্যাবসায়ী, প্রবাসী ও চাকুরীজীবি ফলে বিভিন্ন কাজেকর্মে তাদের ছুটে যেতে হয় বন্দরনগরী চট্টগ্রাম, রাজধানী ঢাকা সহ সারাদেশে কিন্তু দীর্ঘদিন যাবৎ লোহাগাড়ার স্থানীয় মালিক কফিল উদ্দিনের মালিকানাধীন সৌদিয়া পরিবহনের বাসের কাছে জিন্মি হয়ে আছে লোহাগাড়াবাসী। সারাদেশের প্রায় সবগুলো উপজেলায় সকল পরিবহনের বাসের টিকেট কাউন্টার থাকলেও  লোহাগাড়ায় ব্যাতিক্রম সৌদিয়া পরিবহনের ব্যাবসায়িক লাভ ঠিক রাখতে কোন পরিবহনের বাসের কাউন্টার করতে দেওয়া হয়নী ফলে সৌদিয়া পরিবহনের বাসের কাছে জিন্মি হয়ে আছে লোহাগাড়াবাসী।

বাস কাউন্টার চেয়ে বিভিন্ন সময় লোহাগাড়ার সচেতন জনগন সভা সমাবেশ মানববন্ধনের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় তুললেও সমস্যার সমাধান মিলেনি কোনভাবেই ফলে লোহাগাড়াবাসী সেই জিন্মিদশাতেই আটকে আছে।

ইউএনও লোহাগাড়াকে ব্যাবস্থা গ্রহনের চিঠি পাটিয়েছেন প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভী এমপি

সম্প্রতি লোহাগাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন আহবায়ক মিজানুর রহমান মিজানের নেতৃত্বে কিছু লোহাগাড়াবাসী তাদের সমস্যার কথা চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভীর কাছে খুলে বললে তিনি ব্যাবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেন তারই পরিপ্রেক্ষিতে তিনি মারছা পরিবহনের সাথে যোগাযোগ করলে মারছা পরিবহন কতৃপক্ষ মিনিবাস সার্ভিস চালুর উদ্যোগ গ্রহন করে। ১লা জুন লোহাগাড়ায় মারছা পরিবহনের সার্ভিসের উদ্ভোধনের কথা থাকলেও অজানা কারণে থেমে যায় উদ্ভোধন।

ওমর ফারুক নামের একজন ফেসবুক ব্যাবহারকারী লিখেছেন উদ্বোধন হওয়ার কথা থাকা নতুন পরিবহন কাউন্টার নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লোহাগাড়াবাসীর আগ্রহ ও আশায় প্রমান করে লোহাগাড়ায় পরিবহন বিষয়ে মানুষ কতটা অসহায়। তাই আশা রাখি উক্ত সমস্যা সমাধানকে মাননীয় এমপি সাহেব বিষয়টি সব কিছুর উর্ধ্বে অগ্রাধিকার ও চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিবেন এবং এটাই হবে এমপি সাহেবের পক্ষ থেকে আমাদের ঈদ উপহার।

মিছবাহ উদ্দিন রাজিব নামের একজন ফেসবুক ব্যাবহারকারী লিখেছেন বারে বারে একটা জায়গাতে এসে বাধাগ্রস্ত হচ্ছি আমরা লোহাগাড়াবাসী, আজ মারসা গাড়ীর কাউন্টার উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল, কথা ছিল এমপি মহোদয় সেই গাড়িতে করেই শহর থেকে আসবে লোহাগাড়ায়, কিন্তু আমাদের কপালটাই খারাপ। মালিক-শ্রমিক ফেডারেশনের জটিলতায় বাধাগ্রস্ত হয়ে আপাতত আজকে উদ্বোধন হচ্ছে না লোহাগাড়াবাসীর প্রানের দাবী। ইনশাআল্লাহ সব বাধা পেরিয়ে খুব দ্রুত এই সমস্যার অবসান হবে। এমপি মহোদয় এই বিষয়ে ভুমিকা রাখবেন অবশ্যই। আল্লাহ সহায় হোন।

তিনি ছাড়া আরো হাজারো মানুষ ফেসবুকে নিন্দা জানিয়ে পোস্ট দিয়েছেন।

এবিষয়ে জানতে চাইলে আরকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের কোষাদক্ষ মোহাম্মদ ইয়াছিন বলেন, কাউন্টার স্থাপন করতে না দেওয়ার বিষয়ে আমার জানা নেই, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ যেখানে তথ্য ও যোগাযোগ খাতে বিপ্লব সাধন করেছে সেখানে এই ধরনের বিষয়গুলো উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করার সামিল।

মারছা পরিবহনের সার্ভিসের উদ্ভোধন কেন বন্ধ হল জানতে চাইলে পরিবহনটির জেনারেল ম্যানেজার আবু বক্কর ছিদ্দিক বলেন, এই বিষয়ে আমি বিস্তারিত কিছু জানিনা সেটা আমাদের মালিক বলতে পারবেন, মালিকের ফোন নাম্বার চাইলে তিনি দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

বিভিন্ন পরিবহনের কাউন্টার করতে বাধা দেওয়ার বিষয়ে জানতে সৌদিয়া পরিবহনের জেনারেল ম্যানেজার খোরশেদ আলমের মোবাইলে বার বার ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি।

লোহাগাড়াবাসীর প্রানের দাবী সৌদিয়া পরিবহনের বাসের কাছে জিন্মিদশা থেকে লোহাগাড়াবাসীকে মুক্ত করতে যথাযথ কতৃপক্ষ দ্রুত ব্যাবস্থা গ্রহন না করলে সৌদিয়া পরিবহনকে অবাঞ্চিত ঘোষনা সহ আগামীতে মহাসড়ক বন্ধ করে দিয়ে লোহাগাড়াবাসী তাদের দাবী আদায়ে ব্যাবস্থা নিবে বলে অভিমত সকলের।

মতামত