অবশেষে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক: 

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। মানবিক কারণে খালেদা জিয়ার দণ্ডাদেশ ৬ মাসের জন্য স্থগিত করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার (২৪শে মার্চ) বিকেলে আইনমন্ত্রীর আনিসুল হক তার নিজ বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

তবে, এই দণ্ডাদেশ স্থগিতাদেশ থাকাকালীন সময়ে খালেদা জিয়াকে তার নিজ বাসভবনে অবস্থান করার আদেশ দেয়া হয়েছে। বাড়িতে থেকেই তার চিকিৎসা নিতে হবে, বিদেশে যেতে পারবেন না বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া খালেদা জিয়া যখন কারাগার থেকে মুক্তি পাবেন তখন থেকেই এ মেয়াদ কার্যকর হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আইনমন্ত্রী জানান, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ ধারা মোতাবেক তার সাজা ৬ মাসের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। এমনকি তার মুক্তির আদেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন আইনমন্ত্রী। সেখান থেকেই মুক্তির বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত আসবে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ই ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন।

স্বাস্থ্যগত অবস্থার অবনতির কথা উল্লেখ করে তার পরিবারের পক্ষ থেকে এ পর্যন্ত দুই দফায় জামিনের জন্য আবেদন করা হয়। কিন্তু, আপিল বিবেচনা করে তার জামিনের আপিল আবেদন খারিজ করে দেন আদালত।

মতামত