প্রবাসীদের কোন সংস্পর্শ ছাড়াই চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত ১৪ জন

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের তৃতীয় ধাপে পৌছে গেছে চট্টগ্রাম। রোববার পর্যন্ত যে ১৪ জন করোনা রোগী পাওয়া গেছে তারা কেউ বিদেশ ফেরত নন বা কোন প্রবাসীর সংস্পর্শেও আসেননি। আক্রান্ত হওয়ার কোন উৎসই জানা যায়নি। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, মানুষ ঘরে না থাকলে এই সংক্রমণ ধীরে ধীরে বিস্তার লাভ করবে। তবে এরপরও মানুষকে ঘর থেকে বের হওয়া রোধ করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে প্রশাসনকে।

চট্টগ্রামে প্রথম করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয় তিন এপ্রিল। তাতে আক্রান্ত হন বাবা-ছেলে।

গেল দুই সপ্তাহে ৬শোর কাছাকাছি নমুনা পরীক্ষা করা হয় বিআইটিআইডির ল্যাবে। এতে এখন পর্যন্ত যারা আক্রান্ত হয়েছে তাদের প্রায় সবারই সংক্রমণেরউৎস চিহ্নিত করা যায়নি। কারণ বিদেশ ফেরত কোনো ব্যক্তির সংস্পর্শে আসেননি তারা। যাকে সংক্রমণের তৃতীয় ধাপ বলছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

সংশ্লিষ্টদের মতে, সামাজিক সংক্রমণ হলেও ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ার ধরন এখনও গুচ্ছ বা এলাকাভিত্তিক। জনসচেতনতা তৈরি না হলে চলতিমাসের মধ্যে তা উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছুতে পারে।

তবে এই সামাজিক সংক্রমণ রোধ করতে হলে মানুষের যে সচেতনতা দরকার, চট্টগ্রামে তা নেই পুরোপুরি। এখনও বিভিন্ন অজুহাতে ঘর থেকে বের হচ্ছেন মানুষ। তাদের সামলাতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে প্রশাসনকে।

এখন পর্যন্ত চট্টগ্রাম নগরীর ৬টি এবং জেলার দুটি এলাকায় করোনা আক্রান্ত পাওয়া গেছে। তাই এসব এলাকার বেশকিছু বাড়িঘর এখন লকডাউন করে রেখেছে প্রশাসন।

মতামত