চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত হল ডাক্তারসহ ১১ করোনা রোগী: তৎমধ্যে সাতকানিয়ারই ৫ জন

আবদুল আউয়াল জনি, সিটিজি ভয়েস টিভি:

চট্টগ্রামে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজে (বিআইটিআইডি) করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) নমুনা পরীক্ষায় একজন ডাক্তারসহ আরও ১১ জন আক্রান্ত শনাক্ত করা হয়েছে। ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত চট্টগ্রামে সর্বমোট ৯ শত ৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২৭ জনে। বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৩০ জন।

শরীরে করোনাভাইরাসের জীবাণু শনাক্ত হওয়া মোট ১১ জন রোগীর মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের ৫ জন, বোয়ালখালী উপজেলার ১ জন এবং সাতকানিয়া উপজেলার ৫ জন।

মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) রাতে সিটিজি ভয়েস টিভিকে এ তথ্য জানান চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর। তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় বিআইটিআইডিতে ১ শত ১৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে ১২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস(কোভিড-১৯) আক্রান্ত শনাক্ত করা হয়েছে। এরমধ্যে চট্টগ্রামের করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ১১ জন। ১জন নোয়াখালী জেলার। এনিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে ২৭ জন। চট্টগ্রাম অঞ্চলের করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৩০ জন। চট্টগ্রামে এখন পর্যন্ত মোট ৯ শত ৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

নগরের ভেতর শনাক্ত হওয়া ৫ জনের ৪ জনই পাহাড়তলী থানার সাগরিকা এলাকার হাক্কানী পেট্রোল পাম্প এলাকার বাসিন্দা। তারা সবাই একই পরিবারের সদস্য। তারমধ্যে ১৮ ও ৪০ বছর বয়সী দুইজন নারী এবং ২১ ও ২৮ বছর বয়সী দুইজন পুরুষ রয়েছেন বলে সিটিজি ভয়েস টিভিকে নিশ্চিত করেছেন পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাইনুর রহমান।

তিনি আরো জানান, কয়েকদিন আগে ওই পরিবারের অপর এক সদস্যের করোনা শনাক্ত হয়। গত ৮ এপ্রিল গার্টেক্স গার্মেন্টসে কর্মরত ৪৫ বছর বয়সী ওই কর্মকর্তার শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এরপর তার বাড়ি লকডাউন ও ওই কর্মকর্তাকে আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।ওই পরিবারে ছোট একটি বাচ্চাও রয়েছে। তবে তার করোনা শনাক্ত হয়নি।

ওই গার্মেন্টস কর্মকর্তার সংস্পর্শে আসার কারণে নগরের আন্দরকিল্লা এলাকায় ব্যাংক এশিয়ার একটি শাখার ১৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। লকডাউন করা হয় ব্যাংকের শাখাটি। এছাড়া গার্টেক্স গার্মেন্টসে কর্মরত তার চারজন সহকর্মীকেও পাঠানো হয় কোয়ারেন্টাইনে।

নগরের পাঁচলাইশের কাতালগঞ্জে যিনি শনাক্ত হয়েছেন, তিনি পেশায় একজন ডাক্তার। তার বয়স ২৮ বছর। অন্যদিকে বোয়ালখালীর লোকটি ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম নগরের ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানা গেছে। তার বয়স ৭০ বছর।

সাতকানিয়া উপজেলায় করোনা শনাক্ত হওয়া ৫ জনই পশ্চিম ঢেমশার ইছামতি আলীনগরের বাসিন্দা। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাতে মৃত্যুবরণ করা সিরাজুল ইসলাম (৬৫) নামের ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা মানুষ। যাদের বয়স যথাক্রমে ৩১, ৩০, ২৭, ৩০ ও ২৭ বছর।

ইতিমধ্যে সাতকানিয়ায় কভিট-১৯ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া দুই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা নমুনা সংগ্রহ টিমে থাকা চিকিৎসক উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ ওসমানীকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জনের নির্দেশে গত রোববার রাত থেকে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। এ ছাড়া স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের সংস্পর্শ হওয়ায় সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ (ইউএনও) আটজনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) তে পাঠানো হয়েছে। সোমবার তাঁদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

মতামত