ত্রান তহবিলে ১০ হাজার টাকা জমা দিলেন ভিক্ষুক নাজিম উদ্দিন

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় একজন ভিক্ষুক করোনা তহবিলে ১০ হাজার টাকা দান করেছেন।

জানা গেছে, ঝিনাইগাতীর কাংশা ইউনিয়নের গান্ধীগাঁও গ্রামের মৃত ইয়ার উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন (৮০)। ছয় সন্তানের জনক নাজিম উদ্দিনের জীবন চলে ভিক্ষা করে। ছাউনির মতো একটি ঘরে বসবাস করলেও তিনি দু’বছর ধরে ১০ হাজার টাকা সঞ্চয় করেছেন। এবার বর্ষার আগেই ঘর ঠিক করার জন্যই এ সঞ্চয়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে আশপাশে মানুষের আর্থিক দুরাবস্থা দেখে সিদ্ধান্ত বদল করেন।

খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ঝিনাইগাতীর ইউএনও রুবেল মাহমুদ ত্রাণ তহবিল গঠন করেছেন। তার মাধ্যমে গরিব মানুষ সহযোগিতা পাচ্ছেন। মঙ্গলবার জানতে পারেন ইউএনও মালিঝিকান্দা ইউনিয়নের খাটুয়াপাড়া গেছেন চুরি করা চাল উদ্ধার করতে। তখন সেখানেই ছুটে যান বৃদ্ধ নাজিম উদ্দিন। ইউএনওকে কাছে পেয়ে তার হাতে তুলে দেন জমানো ১০ হাজার টাকা।

নাজিম উদ্দিন বলেন, ‘ঘর ঠিক করবার জন্য ভিক্ষা কইরা ১০ হাজার ট্যাহা জমাইছিলাম। কিন্তু দেশের অহন খুব বিপদ। দেশের মানুষ কষ্ট করতাছে। তাই ইউএনও সাহেবের হাতে ট্যাহা দিলাম। তিনি দশেরে দেক। তারা খাইয়া বাচুক’।

ঝিনাইগাতীর ইউএনও রুবেল মাহমুদ বলেন, ‘একজন ভিক্ষুক অনেক কষ্ট করে ঘর তৈরির জন্য ১০ হাজার টাকা সঞ্চয় করেছিলেন। সেই টাকা তিনি তহবিলে দান করলেন। অথচ আমি আজ এ ইউনিয়নে এসেছি মিনারা বেগম নামে সংরক্ষিত ওয়ার্ডের একজন মহিলা মেম্বারের বাড়ি থেকে চাল উদ্ধারে।

মতামত