৫ম পর্যায়ে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করল ‘দশে মিলে করি কাজ’ সংগঠন

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

বিশ্বব্যাপী মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসের কারণে নিজ ঘরে আটকে পড়া কর্মহীন শ্রমজীবী খেটে খাওয়া হতদরিদ্র মধ্যবিত্ত মানুষ এখন গৃহবন্দী। কাজকর্ম ও ব্যবসা-বাণিজ্য করতে না পেরে অনেকে এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে। জাতীর এই ক্রান্তিকালে পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে অসহায় দরিদ্র মধ্যবত্তি মানুষের পাশে দাঁড়ালো লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের মল্লিক ছোবহান হাজির পাড়ার অন্যতম সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘দশে মিলে করি কাজ’।
সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি মাথায় রেখে প্রতিবারের মত জনসমাগম এড়িয়ে কোন ধরণের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই বুধবার (২০ মে) বেলা ১২টায় ৫ম পর্যায়ে পবিত্র ঈদুল ফিতরের উপহার সমাগ্রী সংগঠনের সদস্যরা অসহায় ও মধ্যবিত্তের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেন। দেশের এ সংকটময় মুহুর্তে পবিত্র ঈদুল ফিতরের উপহার সামগ্রী হাতে পেয়ে এসব কর্মহীন, শ্রমজীবী ও মধ্যবিত্ত মানুষ খুবই আনন্দিত। উপহার সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাউল, ভোজ্য তেল, পিয়াজ, আলু, ডাল, চিনি, নারিকেল, বিভিন্ন রকমের সেমাই, নুডলস, লবণ ও দুধসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট সংগঠক ও সমাজসেবক সাংবাদিক এম. সাইফুল্লাহ চৌধুরী, মসজিদে খালিদ বিন ওয়ালিদ জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সেক্রেটারী শিক্ষক মো. আবদুল বাকী চৌধুরী, আইনজীবী এডভোকেট ফৌজুল আজিম, মো. সেলিম উদ্দিন, মো. অরিফুল ইসলাম (ফয়সাল), মো. হাসান চৌধুরী, মো. মহসিন চৌধুরী, মো. মোকতাদির হোসেন (মহিন) ও মো. আবু বকর (গালিব)।
ঈদের উপহার সামগ্রী বিতরণকালে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সংগঠক এম. সাইফুল্লাহ চৌধুরী বলেন, মানবতার জন্য হাত বাড়ানোর এখনই উপযুক্ত সময়। সত্যিকারের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। আমাদের সবার উচিত করোনার এ ক্রান্তিকালে অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়িয়ে তাদের দুঃখ-কষ্টের ভাগীদার হওয়া। বিশ্বব্যাপী মরণঘাতি করোনার দূর্যোগে সরকারের পাশাপাশি এই সংগঠন ৫ম পর্যায়ে অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়াতে পেরে মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় করছি। এই উপহার সামগ্রী দেওয়ার মালিক একমাত্র আল্লাহ, আমরা শুধুমাত্র উছিলা। করোনা ভাইরাসের শুরুর পর থেকে আমরা এলাকার অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আমাদের সাধ্যমত সহযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছি। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্য সুরক্ষার সব নিয়মকানুন সঠিকভাবে পালনের বিষয়ে সজাগ থাকার আহবান জানান।
পরিশেষে বিশ্বের এই ক্রান্তিকালে আমার আহবানে সাড়া দিয়ে দেশ-বিদেশের কিছু সাদা মনের মানুষ আর্থিক অনুদান, শ্রম, পরামর্শ ও উৎসাহ দিয়ে সহযোগিতা করেছেন। আমি তাদের জন্য মহান আল্লাহর দরবারে সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি। আর আপনাদের সহযোগিতা যতদিন অব্যাহত থাকবে ততদিন আমরা পর্যায়ক্রমে উপহার সামগ্রী দেওয়ার চেষ্টা করব। জীবনের শেষদিন পর্যন্ত দরিদ্র মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই। দেশ-বিদেশের ধনী ও বিত্তবান সাদা মনের মানুষের আর্থিক সহযোগিতা পেলে সমাজের সুবিধা বঞ্চিত অসহায় মানুষের কল্যাণে আমাদের কার্যক্রম আরো সম্প্রসারিত করতে পারব। আর সারা বিশ্বে যারা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের সুস্থতা ও যারা ইতোমধ্যে শহীদ হয়েছেন তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

মতামত