স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকের বিরুদ্ধে করোনা রোগী সাজানোর ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবি ও মারধরের অভিযোগ

 

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

টাঙ্গাইলে করোনা রোগী সাজানোর ভয় দেখিয়ে এক ব্যক্তির কাছে চাঁদা দাবি ও মারধরের ঘটনা ঘটেছে। ঘাটাইল উপজেলার সাগরদীঘি ইউনিয়নের ফুলমালির চালা গ্রামের ইচালীপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

মামলার অভিযোগে জানা যায়, ২০ মে ঈদুল ফিতরের ছুটিতে সিলেট থেকে ঘাটাইল উপজেলার সাগরদীঘি ইউনিয়নের ফুলমালির চালা গ্রামের ইচালীপাড়ায় আসেন গ্রামের বাসিন্দা সাদেকুর রহমান। খবর পেয়ে সাদেকুর রহমানের বাড়িতে যান সখীপুর উপজেলার কালিয়া ইউনিয়ন ও কুতুবপুর গ্রামের বাসিন্দা স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক আবুল কালাম ও নায়েব আলী।

এ সময় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এমন অভিযোগ তুলে সাদেকুরের কাছে ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন স্বেচ্ছাসেবক আবুল কালাম। তা না হলে তাকে করোনায় আক্রান্ত রোগী বানিয়ে বাড়ি লকডাউনের হুমকি দেন তিনি। দাবিকৃত টাকা আদায় না হওয়ায় ক্ষুব্ধ স্বেচ্ছসেবক কালাম আর নায়েব ২৪ মে তার বাড়িতে লাল পতাকা টাঙিয়ে দেন। সেই সঙ্গে সাদেকুর ও তার স্ত্রীকে মারধর করেন তারা।

তবে চাঁদা দাবির অভিযোগ অস্বীকার করে স্বেচ্ছাসেবক আবুল কালাম বলেন, ওই ব্যক্তির বাড়ি ঘাটাইল উপজেলায় হলেও তিনি কুতুবপুর গ্রামের বাসিন্দা। সিলেট থেকে বাড়িতে আসায় তাকে বাইরে না আসার জন্য সতর্ক করেন নায়েব আলী। কিন্তু নির্দেশ না মেনে বাইরে ঘোরাঘুরি করায় এমন ঘটনা ঘটেছে।

সখীপুর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) ওমর ফারুক বলেন, অন্য একটি মামলা তদন্ত করতে আমি ওই এলাকায় যাই। এ সময় স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক অভিযোগ করেন সিলেট থেকে একজন ব্যক্তি গ্রামে এসেছেন; যত্রতত্র ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তাকে সতর্ক করার পরও কথা শুনছেন না। এ কারণে আমি ওই বাড়িতে যাই। এ সময় ওই ব্যক্তির স্ত্রী গায়ে হাত তোলেন এক স্বেচ্ছাসেবক। পরে পা ধরে ক্ষমাও চেয়েছেন তিনি। পরে আবার ওই ব্যক্তির বাড়িতে হামলা চালানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবককে গ্রেফতার করা হবে।

মতামত