এবার নিজেই আক্রান্ত হলেন করোনায় মৃতদের দাফন করা সেই মানবতাবাদী কাউন্সিলর

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

আক্রান্ত মরে পড়ে আছেন ধরার কেউ নেই। স্বজনও যখন ভয়ে দূরে সরে যাচ্ছেন এ এমন এক ব্যাধি, তখন মানবতাবাদী কিছু মানুষকেই তো এগিয়ে আসতে হয়। করোনা ক্রান্তিতে এমনই একজন আলোচিত ব্যক্তি নারায়ণগঞ্জের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। নিজ হাতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তিদের দাফন-সৎকার করে দেশ-বিদেশে প্রশংসিত হন তিনি। সেই খোরশেদই এবার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনাকালে অসংখ্য মানুষের মন জয় করে নেয়া এই কাউন্সিলর রোববার বিকেলে নিজের ফেসবুক আইডিতে লাইভে এসে করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এর আগে, ২৩ মে খোরশেদের স্ত্রী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

লাইভে এসে খোরশেদ বলেন, আলহামদুল্লিাহ, আমি করোনায় আক্রান্ত। আপনার সবাই দোয়া করবেন। আমি শারীরিকভাবে ঠিক আছি। আমি কয়েকদিনের মধ্যেই করোনা নেগেটিভ হয়ে ফিরে আসবো। তবে, এর মধ্যে কেউ কেউ ষড়যন্ত্রমূলকভাবে বিভ্রান্তি তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে। করোনা জটিল কিছু না, শরীরে অন্য রোগ না থাকলে নিয়ম মেনে দ্রুতই সুস্থ হয়ে উঠবো ইনশাআল্লাহ।

পরে সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, করোনায় আক্রান্ত হলেও লাশ দাফন ও সৎকার টেলি মেডিসিন ও প্লাজমা সংগ্রহ সেবাসহ যে সকল মানবিক সহায়তা চালিয়ে এসেছি আমরা সেগুলো অব্যাহত থাকবে। আমি মোটেই চিন্তিত নই। বাড়ির দোতলা থেকে উঠোনে চলা সেবা কার্যক্রমের তদারকি করছি।

খোরশেদ জানান, এ পর্যন্ত তিনি ও তার টিম মোট ৬১টি মরদেহ দাফন ও সৎকার করেছেন। এরমধ্যে, ১৫টি মরদেহ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের হওয়ায় সেগুলো দাহ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জে করোনা ভয়াবহতার মাঝে মরে পড়ে থাকা লাশ নিজ হাতে সৎকার করে দেশজুড়ে আলোচনায় আসেন কাউন্সিলর খোরশেদ।

মতামত