রয়েল রিসোর্টে ভাংচুর মামলায় এজহারভুক্ত ১২ আসামি গ্রেফতার

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্কঃ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রয়েল রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে এক নারীসহ অবরুদ্ধ করার ঘটনায় সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ দুই নেতার বাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও রয়্যাল রিসোর্টে ভাংচুর মামলায় এজহারভুক্ত ১২ আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে ও বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) তাদের গ্রেফতার করা হয়। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার বিকেলে পিরোজপুর ইউনিয়নের শান্তিনগরে থেকে ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়। সোনারগাঁ থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে গোপন বৈঠক থেকে গ্রেফতার ৭ জনের নাম প্রকাশ করেননি তিনি।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বুধবার রাতে ও বৃহস্পতিবার পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে। তারা হলেন, উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের পঞ্চবটি গ্রমের আব্দুল কাদিরের ছেলে রাজু ও আবু রায়হান এবং মোক্তার হোসেনের ছেলে ইমরান ও খাসনগর দিঘিরপাড় গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে আকাশ। এর আগে রিসোর্টে হামলার ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে সোনারগাঁয়ের বাংলাবাজার এলাকা থেকে মো. মোস্তফা নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এদিকে পিরোজপুর ইউনিয়নের শান্তিনগরে একটি মাদ্রাসায় গোপন বৈঠক চলাকালে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

সোনারগাঁ থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমান বলেন, হেফাজত নেতাকর্মীদের সহিংসতার ঘটনায় মামলায় এজহারভুক্ত ১২ আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, সোনারগাঁয়ে ভাংচুর, সহিংসতা ও সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে সোনারগাঁ থানা পুলিশের দুই কর্মকর্তা বাদী হয়ে দু’টি মামলা দায়ের করেছেন। এসব মামলায় মামুনুল হকসহ ৮৩ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৫-৬শ’ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়। এছাড়াও সাংবাদিক হাবিবুর রহমানের ওপর হামলার ঘটনায় ১৭ হেফাজত কর্মীর নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত শতাধিক ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

 

 

মতামত